কপি-পেস্টের কাঠগড়ায় শীর্ষ দৈনিক ‘প্রথম আলো’?

dc5a51021b9c4eb8ef5e86dc794054e1-palo-logo
হারুন উর রশীদ:
দেশের শীর্ষ বাংলা দৈনিক প্রথম আলোর একটি কলাম নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুমুল আলোচনা হচ্ছে। অভিযোগ উঠেছে ভারতীয় একটি অনলাইনের কলাম প্রায় হুবহু মেরে দিয়েছেন প্রথম আলোর এক সাংবাদিক। আর তা প্রথম আলোতে ছাপাও হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন সাংবাদিক তানজিল রিমন।
ভারতের ইন্ডিয়া টাইমস ডট কম-এর ‘এই সময়’-এ একটি কলাম ছাপা হয় গত ১২ নভেম্বর। শিরোনাম- আবেগে টোকা মেরে ফ্লোরিডায় ‘ট্রাম্পেট’। এর লেখক ফ্লোরিডার ট্যাম্পা থেকে অন্বেষা।
আর বাংলাদেশের দৈনিক প্রথম আলোতে ছয় দিন পর ১৯ নভেম্বর একটি কলাম ছাপা হয় যার শিরোনাম-যেভাবে ফ্লোরিডা জয় পরাজয় গড়ে দিল। এর লেখক ফ্লোরিডার ট্যাম্পা থেকে রোজিনা ইসলাম।
‘এই সময়’-এর ছয় দিন পর ‘প্রথম আলো’র কলামটি ছাপা হলেও বিষয় এক। তবে সমস্যা এখানে নয়। কারণ বিষয় এক হতেই পারে এবং হরহামেশা হয়েই থাকে। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে অন্য জায়গায় । আর তা হলো, প্রথম আলোর কলামটির তৃতীয় প্যারা থেকে শেষ লাইন পর্যন্ত হবহু মিলে যায় ‘এই সময়’-এর কলামের সঙ্গে। এমনকি দাঁড়ি-কমা-সেমিকোলন সব কিছু। এটা কপি পেস্ট ছাড়া কিভাবে সম্ভব!

untitledoountitled%e0%a6%a4%e0%a6%a6%e0%a6%a4%e0%a6%a6%e0%a6%a6%e0%a6%a6
ফেসবুকে কেউ কেউ প্রশ্ন তুলেছেন একই লেখক দুই জায়গায় লিখেছেন কিনা? বা সিন্ডিকেটেড কলাম কিনা? এব্যাপারে প্রথম আলোর রোজিনা ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। তিনি এখন যুক্তরাষ্ট্রে আছেন। দেশে আসবেন বৃহস্পতিবার। আর ‘এই সময়’-এর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করিনি । কারণ তাদের কলাম প্রথম আলোর ছয়দিন আগে ছাপা হয়েছে। সুতরাং তাদেরটা যে প্রথম আলোর তুলনায় মৌলিক তা স্পষ্ট।
আর এটা সিন্ডিকেটেড কলাম নয়। তাহলে উল্লেখ থাকতো। এবং কলামের প্রথম দুই প্যারায় পরিবর্তন আনতেন না প্রথম আলোর লেখক।

zkz
তাহলে লেখক একজনই কিনা? তাও যদি হয় তাহলে কলাম লেখক প্রথম আলোকে ঠকিয়েছেন। কারণ আগে ছাঁপা হওয়া একই জিনিস তিনি প্রথম আলোকে কৌশলে গিলিয়েছেন। আর প্রথম আলোতে চাকরি করে অন্যকোথাও লেখার সুযোগ নেই বলে প্রথম আলোর সাংবাদিকদের সাথে কথা বলে আমি নিশ্চিত হয়েছি। তারা বলেছেন কেউ ছদ্ম নামে লিখলে ধরার উপায় নেই। তবে এটা প্রথম আলোর সাংবাদিকরা করেন না। কারণ অফিস কঠোর নজরদারী করে। রোজিনা ইসলাম প্রথম আলোর সিনিয়র রিপোর্টার।
সুতরাং এটা প্রাথমিকভাবে কপি পেস্ট-বলেই মনে হয়েছে আমার কাছে। তবুও প্রথম আলো শেষ পর্যন্ত কী ব্যখ্যা দেয় শেষ পর্যন্ত তা দেখার অপেক্ষায় রইলাম।

This slideshow requires JavaScript.

আপডেট:  এরইমধ্যে প্রথম আলো তাদের অনলাইন সংস্করণ থেকে কপি-পেস্ট কলামটি সরিয়ে ফেলেছে। তবে ই প্রথম আলো থেকে সরাতে পারেনি। আর প্রিন্ট এডিশন থেকেতো সরানো সম্ভব নয়। সেটা রয়েই গেছে। আর পাঠককে কিছু না জানিয়ে অনলাইন থেকে সরিয়ে প্রথম আলো আরেকটি অনৈতিক কাজ করলো।
কলাবাগান, ঢাকা
২২.১১.২০১৬

3 thoughts on “কপি-পেস্টের কাঠগড়ায় শীর্ষ দৈনিক ‘প্রথম আলো’?

  1. ক্রেস্ট রিপোর্টটিও ওই রকম হয়েছে। ক্রেস্ট কেলেংকারি রিপোর্টটি প্রথম করে শীর্ষ নিউজ। স্যারের পত্রিকায় তেল ম্যাডামরা এভাবেই লিখে।

    Like

  2. Pingback: প্রথম আলোর দু:খ প্রকাশ, কপি-পেস্ট কলাম প্রত্যাহার, তারপর? | Press Insight

  3. Pingback: রোজিনা যা করেছে আমি তা করতাম না: অন্বেষা ব্যানার্জী | Press Insight

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s